1. alomgirmondol261@gmail.com : দৈনিক আজকের খোলা কাগজ :
বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ১০:১০ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
পত্নীতলায় উপজেলা পরিষদের মাসিক সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত কেন্দুয়ায় মুক্তিযুদ্ধের শ্লোগানকে বিকৃত করার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ কুড়িগ্রামে কমছে বন্যার পানি,দেখা দিয়েছে পানিবাহিত রোগ ,নেই স্যানিটেশন ব্যবস্থা  নিয়ামতপুরে সাংবাদিককে প্রাণনাশের হুমকি, থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের ৭৩০ কোটি টাকা ব্যয়, তবু ডুবল ঢাকা নওগাঁর নিয়ামতপুরে র‍্যাবের অভিযানে পিস্তল ম্যাগাজিনসহ আটক-১ হাটহাজারীতে সড়ক দুর্ঘটনায় স্বামীর মৃত্যু, হাসপাতালে স্ত্রী নিয়ামতপুরে ব্র্যাকের উদ্যোগে উপজেলা বাল্য বিয়ে নিরোধ কমিটির সমন্বয় সভা নিয়ামতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় হাসপাতালে রোগীদের জন্য নিরাপদ খাবার নিশ্চিত করতে হবে—-খাদ্যমন্ত্রী মুধইলে ভাংড়ি দোকানের ময়লা আবর্জনা”প্রতিনিয়ত প্রাণঘাতীর কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে

বাহুবলে আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারী বিএনপি’র সিনিয়র সহ-সভাপতি ফারুক গ্রেফতার

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২৩
  • ৫১ বার পড়া হয়েছে

হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জে বাহুবলে হামলা বিস্ফোরক নাশকতা ও ভাংচুরের মামলায় বিএনপি সিনিয়র সহ-সভাপতি লাল ফারুক (৪৮) নামে এক বিএনপি নেতাকে গ্রেফতার করেছে হবিগঞ্জ র‌্যাব ৯।

বাহুবল উপজেলার মিরপুর বাজার এলাকায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করা হয়।

তিনি উপজেলার ৭নং ভাদেশ্বর ইউনিয়নের বিএনপি সাবেক অন্যতম সদস্য মৃত জাফর আলী ছেলে ও বিএনপি নেতা থেকে বাহুবল উপজেলা তাঁতীলীগে অনুপ্রবেশকারী রাসেলের বড় ভাই। তিনি ভাদেশ্বর ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের সিনিয়র সহ-সভাপতি
প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত মঙ্গলবার ৩১ অক্টোবর বেলা একটার দিকে বাহুবল উপজেলার মিরপুর বাজার এলাকায় বিএনপির নেতা-কর্মীরা জড়ো হন তঁদের পূর্বনির্ধারিত অবরোধ কর্মসূচি পালন করতে একপর্যায়ে তাঁরা একটি মিছিল নিয়ে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের দিকে এগিয়ে যান। তখন স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরাও মিছিল নিয়ে তাঁদের ধাওয়া করেন। এ সময় উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় পাল্টাপাল্টি ধাওয়া ও ইটপাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে বাহুবল থানার একদল পুলিশ বিএনপির নেতা-কর্মীদের ধাওয়া করে। তখন বিএনপির নেতা-কর্মীদের সঙ্গে পুলিশ ও আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের ত্রিমুখী সংঘর্ষ হয়। প্রায় ২০ মিনিট স্থায়ী এ সংঘর্ষে অন্তত ২২ জন আহত হন।
এ‌ ঘটনায় বাহুবল মডেল থানায় বিস্ফোরক, নাশকতা সৃষ্টি , ভাংচুর এবং পুলিশ এসল্ট আইনে পৃথক দু’টি মামলা করা হয়।
অনুপ্রবেশকারী কিভাবে এমন প্রশ্নের জবাবে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দিন লিয়াকত বলেন, দল ক্ষমতায় থাকার কারণে সুবিধাবাদীরা নিজেদের স্বার্থ উদ্ধারে অনুপ্রবেশ করছে। রাসেল মিয়া ২০০৯ সালের জাতীয় নির্বাচনের আগে বিএনপির নেতা ছিল। সে ২০০৯ সালের জাতীয় নির্বাচনের সময় আওয়ামী লীগে যোগ দেন। তার আপন বড় ভাই ৭ নং ভাদেশ্বর ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের সিনিয়র সহ-সভাপতি লাল ফারুক এবং তার বাবা মৃত জাফর আলী বিএনপির অন্যতম সদস্য ছিলেন। রাসেল আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারী এবং তার বড় ভাইয়ের উপর আওয়ামী লীগের মামলা রয়েছে। তার পরিবারের সবাই বিএনপি করে।
অনুপ্রবেশকারীরা সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত থাকতে পারবেন কি না জানতে চাইলে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দিন লিয়াকত বলেন, ‘এটা তাদের অপরাধের মাত্রা বুঝে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’
বাহুবল মডেল থানার ওসি মশিউর রহমান বলেন, মামলার ১৩ নাম্বার গ্রেফতারকৃত আসামি ফারুক মিয়াকে শনিবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

পুরাতন সংবাদ পড়ুন

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০  
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট