1. alomgirmondol261@gmail.com : দৈনিক আজকের খোলা কাগজ :
বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ০১:৪৯ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
নিয়ামতপুরে ফরিদ আহমেদ পুনরায় উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত বউ চলে যাওয়ায় হতাশ, ফেসবুকে ‘পৃথিবীকে বিদায়’ লিখে আত্মহত্যা! গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতীকের নির্দেশে রূপগঞ্জের ইউসুফগঞ্জ বাজারের পূর্বপাশে পানি নিষ্কাশনে পাকা ড্রেন নির্মাণ কাজের উদ্বোধন নিয়ামতপুরে ষষ্ঠ ধাপে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোটগ্রহন কর্মকর্তাদের প্রশিণ কর্মশালা জাল সনদ কেনা ব্যক্তিদের তালিকা পেয়েছে ডিবি রূপগঞ্জে সাংবাদিকদের সঙ্গে উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থীর মতবিনিময় সভা নিত্যপণ্যের দাম বাড়ছেই লোহাগড়ায় সাবেক চেয়ারম্যানকে গুলি করে খুন খাদ্যমন্ত্রীর বড় ভাই বীর মুক্তিযোদ্ধা ধীরেশ চন্দ্র মজুমদারের মৃত্যু, খাদ্যমন্ত্রী শোক প্রকাশ মন্ত্রী-এমপিদের প্রভাব ঠেকাতে সংসদকে ইসির চিঠি অভিযোগ পেলেই ভোট গ্রহণ কর্মকর্তা বাদ: ইসি আলমগীর

নিয়ামতপুরে দর্শনার্থীর ভিড়ে মুখরিত ঘুঘুডাঙ্গা তালসড়ক

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: শনিবার, ১৩ এপ্রিল, ২০২৪
  • ১৩ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ ঈদুল ফিতরের টানা ছুটিতে দর্শনার্থীদের উপচে পড়া ভিড়ে মুখরিত হয়ে উঠেছে নওগাঁর নিয়ামতপুরের ঘুঘুডাঙ্গা তালসড়ক। পরিবার-পরিজন নিয়ে আগত দর্শনার্থীরা প্রাকৃতিক সৌন্দর্য অবলোকন করছেন। দেশের বিভিন্ন কর্মস্থল থেকে নাড়ির টানে ঘরে ফেরা মানুষদের ঈদ আনন্দের মাত্রাকে বাড়িয়ে তুলেছে ঘুঘুডাঙ্গা তালসড়ক। নিয়ামতপুর উপজেলার ছাতড়া-শিবপুর আঞ্চলিক সড়কের পাশ্ববর্তী রাস্তায় সারি সারি তালগুলো দাঁড়িয়ে আছে। তালসড়কের এই অপরূপ সৌন্দর্য উপভোগ করতে হাজার হাজার বিনোদনপ্রেমী ও দর্শনার্থীদের ভিড় চোখে পড়ার মতো।
জানা যায়, ১৯৮৩ সালে নিয়ামতপুর উপজেলার হাজিনগর মজুমদার মোড় থেকে ঘুঘুডাঙ্গা গ্রাম পর্যন্ত প্রায় দুই কিলোমিটার রাস্তার দুই ধারে প্রায় ৭০০টি তাল বীজ রোপণ করা হয়। কালের বিবর্তনে বেশ কিছু তালগাছ বিভিন্নভাবে মারা গেলেও এখনো প্রায় ৬০০টি তালগাছ মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে। সেই তালগাছগুলো ৫০- ৬০ ফিট লম্বা হয়ে কালের সাক্ষী হয়ে রাস্তার দুই ধারে শোভাবর্ধন করে আসছে। অনেক দর্শক ও বৃক্ষপ্রেমীরা দেখতে আসেন ঘুঘুডাঙ্গা তালসড়ক।
ঈদের দ্বিতীয় দিন বিকেলেও ঘুঘুডাঙ্গা তালসড়কে আগত দর্শনার্থীদের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মত। বেলা বাড়ার সাথে সাথে ও বিকালে আগত দর্শনার্থীদের ভিড়ে মুখরিত হয়ে উঠে তালসড়ক। সবাই ব্যস্ত নিজের হাতে থাকা মোবাইলে প্রিয়জনদের সাথে নিয়ে তালসড়কের ছবি তুলে স্মৃতি হিসেবে জমা রাখতে। ঈদে পরিবার নিয়ে খোলা জায়গায় প্রাকৃতিক পরিবেশে ঘোরার জন্য এর চেয়ে সুন্দর জায়গা নেই, এমনটাই বলেছে তালসড়কে ঘুরতে আসা দর্শনার্থীরা।
তালসড়কে ঘুরতে আসা মুনমুন আক্তার বলেন, অনেক দিন থেকে ভেবে রেখেছিলাম সময় পেলে একবার তাল সড়কে ঘুরতে যাবো। ফেসবুকে ঘুঘুডাঙ্গা তালসড়কের অনেক ছবি ও ভিডিও দেখেছি। কিন্তু একবারও আসা হয়নি। এবার ঈদের টানা ছুটি পাওয়া প্রিয়জনের সাথে ঘুরতে আসলাম তালসড়কে। এখানে এসে অনেক ভালো লাগছে।
দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়ুয়া তিথী আক্তার বলেন, বাবা- মায়ের সাথে ঘুরতে এসেছে। এখানে এসে অনেক মজা করলাম। আমি ঘোড়ার পিঠে উঠেছিলাম। মা তখন মোবাইলে আমার ছবি তুলছিলেন।
আরেক দর্শনার্থী আরিফুল ইসলাম বলেন, মোবাইলে অনেকবার দেখেছি তালসড়ক। এবার বন্ধুদের সাথে ঘুরতে আসলাম তালসড়কে। সারি সারি তালগাছ, দোকানপাট, রাস্তার দু-ধারে বসার স্থান সব মিলিয়ে জায়গাটা আমার অনেক ভালো লেগেছে। বৃক্ষপ্রেমীদের উদ্দেশ্যে বলেন সময় ও সুযোগ পেলে আপনারাও আসতে পারেন প্রিয়জনকে সাথে নিয়ে তালসড়কে।
স্থানীয় বাসিন্দা নাজমুল হক বলেন, প্রতিদিন বৃক্ষপ্রেমীরা তালসড়কে ঘুরতে আসে। তবে ঈদকে কেন্দ্র করে সপ্তাহব্যাপী সকাল বিকেলে দর্শনার্থীদের ভিড় থাকে অনেক। এ তালসড়কের জন্য আমাদের ঘুঘুডাঙ্গা গ্রাম দেশের মানুষের কাছে পরিচিত পেয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

পুরাতন সংবাদ পড়ুন

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট